15th Aug 2019: আসন্ন অষ্টম মেম্বারশীপ ভেরিফিকেশন ,

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ অষ্টম মেম্বারশীপ ভেরিফিকেশন এ বিএসএনএল এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন কে পুনরায় বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করুন 

 

20th Mar 2019: বিএসএনএলইইউ এর ১৯তম প্রতিষ্ঠা দিবস পালন করুন,

আগামী ২২ মার্চ ২০১৯  বিএসএনএলইইউ এর ১৯তম প্রতিষ্ঠা দিবস বিএসএনএল এর প্রতিটি অফিস দফতরে ব্যাপক ঊদ্দীপনার সাথে পালন করুন। 

 

Com Prabir Kumar Dutta
( President )

Com. Sisir Kumar Roy
( Secretary )

Com. Debasis Dey
( Treasurer )

 
 
bsnleuctc@yahoo.co.in
 
BSNL Employees Union Calcutta Telephones Circle
 
Site Updated On : 30th May 2020
 
[14th Feb 2020]

বিধাননগর জেলার বিশেষ সাধারণ সভা

 

 

আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, শনিবার বিধাননগর জেলার বিশেষ সাধারণ সভা আয়োজিত হয় বিধাননগর টেলিফোন এক্সচেঞ্জে । এই সভায় কম জয়ন্ত কুমার ঘোষ, জেলা সভাপতি সভাপতিত্ব করেন । কম কেশব রায়, জেলা সম্পাদক গত ৩১ জানুয়ারি ভিআরএস নেওয়ায় সম্পাদক পদ থেকে ইস্তফা দেন। বিধাননগর জেলা কমিটি এই ইস্তফা সর্বসম্মতিক্রমে গ্রহণ করেন। তারপর সভায় সহকারী জেলা সম্পাদক কম সুব্রত পাল কে আগামী জেলা সম্মেলন পর্যন্ত কার্যকরী জেলা সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত করে। এই সভায় কম শিশির রায়, সার্কেল সম্পাদক ও কম দেবাশিস দে, কোষাধক্ষ সার্কেল এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন। এই নির্বাচন এর বিষয়টি বিধাননগর জেলা কর্তৃপক্ষকে সাংগঠনিক কারণে জানানো হবে।

 
[14th Feb 2020]

कॉन्ट्रैक्ट वर्कर्स की समस्याओं के निराकरण की मांग करते हुए 03.03.2020 को "मार्च टू कॉर्पोरेट ऑफिस"....

 

विगत 10 माह से कॉन्ट्रैक्ट वर्कर्स के वेजेस का भुगतान नही होने से उन्हें अत्यंत परेशानियों का सामना करना पड़ रहा है। इस संबंध में प्रबंधन से कई बार चर्चा की जा चुकी है। किंतु, प्रबन्धन के दृष्टिकोण में, कॉन्ट्रैक्ट वर्कर्स को वेजेस का भुगतान उनके लिए अंतिम प्राथमिकता है। इसके अलावा, कॉर्पोरेट ऑफिस द्वारा कॉन्ट्रैक्ट वर्कर्स की बड़ी संख्या में छंटनी हेतु पत्र भी जारी किया गया है। यह बताना जरूरी नही है कि VRS लागू होने के मद्दे नजर स्टाफ की बहुत ज्यादा कमी हो गई है और ऐसे में अनुभवी कॉन्ट्रैक्ट वर्कर्स BSNL की सेवाओं के रखरखाव हेतु बेहद उपयोगी साबित होंगे। किन्तु, कॉर्पोरेट ऑफिस द्वारा BSNL के कार्य करवाने हेतु वर्तमान में जारी " लेबर कॉन्ट्रैक्ट सिस्टम" के स्थान पर "जॉब कॉन्ट्रैक्ट सिस्टम" हेतु पत्र जारी किया गया है। प्रबंधन के इस निर्णय ने BSNL में वर्तमान में कार्यरत कॉन्ट्रैक्ट वर्कर्स का भविष्य खतरे में डाल दिया है। उपर्युक्त परिप्रेक्ष्य में, BSNLEU और BSNL केज्युअल कॉन्ट्रैक्ट वर्कर्स फेडरेशन (BSNL CCWF), दोनों ने ही उपर्युक्त मुद्दों पर BSNL मैनेजमेंट से अनुकूल कार्यवाही करने की मांग करते हुए 03.03.2020 को नई दिल्ली में रैली आयोजित करने का निर्णय लिया है। कल दिनांक 11.02.2020 को सम्पन्न BSNLEU के ऑल इंडिया सेन्टर की मीटिंग में यह निर्णय लिया गया है कि NTR और कॉर्पोरेट ऑफिस सर्कल्स के अलावा समीपस्थ सर्कल्स यूपी(वेस्ट), हरियाणा, राजस्थान, पंजाब, हिमाचल प्रदेश, उत्तराखंड और यूपी(ईस्ट) से अधिक से अधिक संख्या में BSNL कर्मचारियों को इस रैली हेतु संगठित (mobilise) किया जाए। CHQ द्वारा उपरोक्त सर्किल सेक्रेटरीज को रैली के लिए अधिक से अधिक कॉमरेड्स को संगठित (mobilise) करने का अनुरोध करते हुए पत्र लिखा गया है।

 
[11th Feb 2020]

সিজিএম কলকাতা টেলিফোন্স এর দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ

 

এইউএবি, সিএইচকিউ এর আহ্বানে আজ ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ কলকাতা টেলিফোন্স সার্কেল এর সিজিএম দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।এই সভায় কম শিশির রায়, সার্কেল সম্পাদক, বিএসএনএলইইউ, কম অরিন্দম রায়, কার্যকরী সম্পাদক, এআইবিএসএনএলইএ, কম অলোক নন্দী, সার্কেল সম্পাদক, এফএনটীও, কম শেখর মজুমদার, সার্কেল সম্পাদক, এনএফটিই ও কম হরেকৃষ্ণ ফৌজদার, এসএনইএ উপস্থিত সদস্যদের সামনে বক্তব্য রাখেন। বক্তারা তাদের বক্তব্যে দাবি করেন অবিলম্বে নিয়মিত ও অনিয়মিত কর্মচারীদের বকেয়া বেতন প্রদান, কর্মচারীদের বেতন থেকে কেটে নেওয়া টাকা যা এখনও পর্যন্ত কোঅপারেটিভ, ব্যাঙ্ক ও অন্যান্য সংগঠনের কাছে জমা পড়েনি তা অবিলম্বে প্রদান করা, মাসের নির্দিষ্ট দিনে বেতন প্রদান, অবিলম্বে ৪জি পরিষেবা চালু, ভিআরএস পরবর্তী পরিস্থিতিতে একতরফা কর্মচারীদের স্থানান্তর বাতিল এবং এফআর ১৭এ ধারায় জারি করা আদেশ প্রত্যাহার ইত্যাদি।

এই সমাবেশ থেকে কম শিশির রায়, সার্কেল সম্পাদক, বিএসএনএলইইউ, কম শেখর মজুমদার, সার্কেল সম্পাদক, এনএফটিই, কম শুভাশিস মিত্র, সার্কেল সম্পাদক, এআইবিএসএনএলইএ, কম সৌমেন্দ্রনাথ ঘোষ, সার্কেল সম্পাদক, এসএনইএ এবং কম অলোক নন্দী, সার্কেল সম্পাদক, এফএনটীও নিয়ে গঠিত প্রতিনিধি দল ড. বিশ্বজিৎ পাল, সিজিএম, কলকাতা টেলিফোন্স এর সঙ্গে দেখা করেন এবং উপরোক্ত বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করেন । তিনি বলেন যে সিএমডি বিএসএনএল এর সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলবেন। 

 
[10th Feb 2020]

এইউএবি কলকাতা টেলিফোন্স সার্কেল এর মিটিং

 

আজ ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, সোমবার টেলিফোন ভবন আরজেসিএম ঘরে এইউএবি কলকাতা টেলিফোন্স সার্কেল এর মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। এই সভায় বিএসএনএলইইউ, এসএনইএ, এআইবিএসএনএলইএ, এফএনটীও এবং এসএনএটিটিএ এর সার্কেল নেতৃত্ব উপস্থিত ছিলেন। কম অলোক নন্দী সভায় সভাপতিত্ব করেন । বিএসএনএলইইউ এর পক্ষে কম শিশির রায়, সার্কেল সম্পাদক, কম শর্মিলা দত্ত, সহকারী সভাপতি, কম স্বপন ভারতী, সহকারী সভাপতি ও কম বিশ্বজিৎ শীল, সহকারী সার্কেল সম্পাদক, এআইবিএসএনএলইএ এর পক্ষে কম শুভাশিস মিত্র, সার্কেল সম্পাদক ও কম অজয় কুন্ডু, এফএনটীও এর পক্ষে কম অলোক নন্দী, সার্কেল সম্পাদক, এসএনইএ এর পক্ষে কম সৌমেন্দ্রনাথ ঘোষ, সার্কেল সম্পাদক ও কম শঙ্কর সান্যাল, সার্কেল সভাপতি এবং কম সমীর দাস এসএনএটিটিএ এর পক্ষে আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন। বিস্তারিত আলোচনার পর নিম্নলিখিত সিদ্ধান্তগুলি গৃহীত হয়,

১) ১১ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১-৩০টায় সিজিএম কলকাতা টেলিফোন্স এর দপ্তরের সামনে মধ্যাহ্ন বিরতিতে বিক্ষোভ সমাবেশ।

২) ২৪ ফেব্রুয়ারি ১১টা থেকে বিকেল ৫টা অনশন ধর্মঘট ।

এইউএবি কলকাতা টেলিফোন্স সার্কেল এর পক্ষ থেকে সমস্ত কর্মচারীদের এই সকল কর্মসূচিতে ব্যাপক সংখ্যায় অংশ গ্রহণ এর মাধ্যমে সফল করার আহবান জানান হচ্ছে।

 
[6th Feb 2020]

এইউএবি এর পক্ষ থেকে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করা হলো

 

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ এইউএবি নেতৃত্ব কম চন্দেশ্বর সিং এর সভাপতিত্বে একটি সভা আয়োজন করেন। এই সভায় এইউএবি এর অন্তর্ভুক্ত সমস্ত সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন। কম পি অভিমন্যু, আহ্বায়ক, এইউএবি সভায় উপস্থিত সদস্যদের স্বাগত জানান ও আলোচ্য সূচি ব্যাখ্যা করেন । সভায় বিস্তারিত আলোচনার পর নিম্নলিখিত দাবিগুলিতে আন্দোলন সংগঠিত করার আহবান জানান হয়,

দাবি সমূহ :-

১) অবিলম্বে বকেয়া ডিসেম্বর, ২০১৯ ও জানুয়ারি, ২০২০ মাসের বেতন প্রদান করতে হবে। সেই সাথে পরবর্তী মাসের বেতন সময়মত প্রদান করতে হবে।

২) অবিলম্বে কর্মচারীদের বেতন থেকে কেটে নেওয়া টাকা যা এখনও পর্যন্ত প্রদান করা হয় নি তা বিভিন্ন ইউনিয়ন ও অ্যাসোসিয়েশন, কোঅপারেটিভ, ব্যাঙ্ক ও অন্যান্য সংগঠনগুলিকে দিতে হবে।

৩) বিএসএনএল কে ৪জি পরিষেবা অবিলম্বে চালু করতে হবে।

৪) বিএসএনএল এর বন্ড চালু করার জন্য প্রয়োজনীয় গ্যারান্টি কেন্দ্রীয় সরকার কে অবিলম্বে ব্যবস্থা করতে হবে।

৫) এফ আর ১৭এ ধারায় জারি করা নির্দেশ অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে।

৬) ভিআরএস পরবর্তী কালে কোনরকম একতরফা স্থানান্তর এর আদেশ জারি করা চলবে না।

কর্মসূচি :-

১) আগামী ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ মধ্যাহ্ন বিরতির সময় বিক্ষোভ সমাবেশ ।

২) আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সমস্ত স্তরে কর্মচারীদের অনশন ধর্ণা কর্মসূচি ।

 
[4th Feb 2020]

সিটিও টেলিকম ইন্সটিটিউট হলে যৌথ কনভেনশন

 

৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, মঙ্গলবার সিটিও বিল্ডিং এর টেলিকম ইন্সটিটিউট হলে একটি কনভেনশন এর আয়োজন করা হয় বিএসএনএলইইউ, সিটিটিএমইউ ও এআইবিডিপিএ এর যৌথ উদ্যোগে। এই কনভেনশন পরিচালনা করার জন্য কম শিশির কুমার রায়, সার্কেল সম্পাদক, বিএসএনএলইইউ ও কম তপন ঘোষ, সার্কেল সভাপতি, সিটিটিএমইউ কে নিয়ে সভাপতিমনডলী গঠিত হয়। এই কনভেনশনের মূল দাবি গুলি হল, ১) বিএসএনএল কে বাঁচাতে হবে, ২) অবিলম্বে নিয়মিত ও অনিয়মিত কর্মচারীদের বকেয়া বেতন প্রদান, ৩) বিএসএনএল এর কাজ আউট সোর্স করা ও ঠিকা কর্মচারীদের ছাঁটাই করা চলবে না। কম অনিমেষ মিত্র, সার্কেল সম্পাদক, বিএসএনএলইইউ, পশ্চিমবঙ্গ সার্কেল উপস্থিত সদস্যদের সামনে এই দাবিগুলি আদায় করার জন্য কর্মসূচি পেশ করেন। কম অনাদি সাহু, সাধারণ সম্পাদক, সিআইটিইউ তার বক্তব্যে কেন্দ্রের মোদী সরকারের বিএসএনএল তথা সমগ্র রাষ্ট্রায়ত্ত ক্ষেত্র বিরোধী নীতির সমালোচনা করেন। তিনি আরও বলেন কেবলমাত্র সমস্ত গণসংগঠনগুলির ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন রাষ্ট্রায়ত্ত ক্ষেত্রকে রক্ষা করতে পারে। কম অরূপ সরকার, সার্কেল সম্পাদক, সিটিটিএমইউ তার বক্তব্যে আসন্ন কর্মসূচিগুলি পালন করতে সক্রিয় ভূমিকা নেওয়ার কথা বলেন। কম ওমপ্রকাশ সিং, সাধারণ সম্পাদক, বিএসএনএল কো-অর্ডিনেশন কমিটি এবং কম সঞ্জীব ব্যানার্জি, সার্কেল সম্পাদক, এআইবিডিপিএ কনভেনশনে বক্তব্য রাখেন। টেলিফোন ভবন, আলিপুর টেলিকম ফ্যাক্টরি ও সল্টলেক ট্রেনিং সেন্টার বিক্রি বা লীজের বিরোধিতা করা হয়। কনভেনশন থেকে পোষ্টার, লিফলেট এর মাধ্যমে প্রচার কর্মসূচি, কলকাতা টেলিফোন্স ও পশ্চিমবঙ্গ সার্কেল এর সিজিএম দপ্তরের সামনে ধর্না, বিক্ষোভ ইত্যাদি সংগঠিত করার কথা ঘোষণা হয়। ব্যাপক সংখ্যায় নিয়মিত, অনিয়মিত ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীরা এই কনভেনশনে উপস্থিত ছিলেন।

 
[1st Feb 2020]

সিজিএম কলকাতা টেলিফোন্স এর দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ

 

আজ ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, শনিবার কলকাতা টেলিফোন্স সার্কেল এর চীফ জেনারেল ম্যানেজার এর দপ্তরের সামনে বিএসএনএলইইউ, কলকাতা টেলিফোন্স ঠিকা মজদুর ইউনিয়ন এবং এআইবিডিপিএ এর যৌথ উদ্যোগে এক ব্যাপক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় নিয়মিত কর্মচারীদের দুমাসের বেতন ও ঠিকা কর্মচারীদের বকেয়া বেতন প্রদান এর দাবিতে। এই সভায় কম শিশির রায়, সার্কেল সম্পাদক, বিএসএনএলইইউ, কম অরূপ সরকার, সার্কেল সম্পাদক, সিটিটিএমইউ এবং কম সঞ্জীব ব্যানার্জি, সার্কেল সম্পাদক, এআইবিডিপিএ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা তাদের বক্তব্যে নিয়মিত কর্মচারীদের বকেয়া বেতন, ভিআরএস পরবর্তী কালে নন-এক্সিকিউটিভ কর্মচারীদের একতরফা ভাবে কোনও আলোচনা না করে ট্রান্সফার ও পোস্টিং করা, ঠিকা শ্রমিকদের বিগত দশ মাসের বকেয়া বেতন, ঠিকা শ্রমিকদের ছাঁটাই করার প্রচেষ্টা ও কলকাতা টেলিফোন্স এর টেলিফোন ভবন সহ অন্যান্য সম্পত্তি ভাড়া বা লীজে দেওয়ার প্রচেষ্টার বিরোধিতা করেন। সংগঠনগুলির পক্ষ থেকে একটি প্রতিনিধি দল সিজিএম এর সঙ্গে দেখা করে উপরোক্ত বিষয়গুলি নিয়ে একটা স্মারকলিপি দেন এবং বিস্তারিত আলোচনা করেন। 

 
You are Visitor Number Hit Counter
Hit Counter
[CHQ] [AP] [Kerala] [Karnataka] [Tamil Nadu] [Calcutta] [West Bengal] [Punjab] [Maharashtra] [Orissa] [MP] [Gujrat] [SNEA] [AIBSNLEA] [TEPU]
[Intranet / BSNL] [DOT] [DPE] [TRAI] [PIB] [CITU ] / AIBDPA