15th Aug 2019: আসন্ন অষ্টম মেম্বারশীপ ভেরিফিকেশন ,

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ অষ্টম মেম্বারশীপ ভেরিফিকেশন এ বিএসএনএল এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন কে পুনরায় বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করুন 

 

20th Mar 2019: বিএসএনএলইইউ এর ১৯তম প্রতিষ্ঠা দিবস পালন করুন,

আগামী ২২ মার্চ ২০১৯  বিএসএনএলইইউ এর ১৯তম প্রতিষ্ঠা দিবস বিএসএনএল এর প্রতিটি অফিস দফতরে ব্যাপক ঊদ্দীপনার সাথে পালন করুন। 

 

Com Prabir Kumar Dutta
( President )

Com. Sisir Kumar Roy
( Secretary )

Com. Debasis Dey
( Treasurer )

 
 
bsnleuctc@yahoo.co.in
 
BSNL Employees Union Calcutta Telephones Circle
 
Site Updated On : 19th Nov 2020
 
[19th Nov 2020]

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

আমরা বিএসএনএল এর আটটি ইউনিয়ন ও অ্যাসোসিয়েশন, বিএসএনএল এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন (বিএসএনএলইইউ), ন্যাশনাল ফেডারেশন অফ টেলিকম এমপ্লয়িজ বিএসএনএল (এনএফটিই বিএসএনএল), ন্যাশনাল ইউনিয়ন অফ বিএসএনএল ওয়ার্কার্স এফএনটিও (এনইউবিএসএনএলডব্লিউ এফএনটিও), বিএসএনএল মজদুর সংঘ (বিএসএনএল এমএস), সঞ্চার নিগম অ্যাসোসিয়েশন অব টিবিএস (এসএনএটিটিএ), বিএসএনএল অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিকম মেকানিক্স (বিএসএনএল এটিএম), টেলিকম এমপ্লয়িজ প্রোগ্রেসিভ ইউনিয়ন (টিইপিইউ) ও বিএসএনএল অফিসারস অ্যাসোসিয়েশন (বিএসএনএল ওএ) আগামী ২৬ নভেম্বর, ২০২০ এর সাধারণ ধর্মঘটে যুক্ত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নগুলির ৭ দফা দাবির সঙ্গে বিএসএনএল এর ১০ দফা দাবি আদায়ের জন্য আমরা এই ধর্মঘটে যুক্ত হয়েছি। 

বিএসএনএল এর আর্থিক পুনরুদ্ধার এখনও সুদূর স্বপ্ন, যেহেতু কেন্দ্রীয় সরকারের এই বিষয়ে কোন আন্তরিক পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন না। শুধু তাই নয়, বিএসএনএল এর ৪জি পরিষেবা চালু করার ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় সরকার বাধার সৃষ্টি করছেন। এটা সবাই জানেন যে বিএসএনএল এর ৫০০০০ ৪জি বিটিএস এর যন্ত্রাংশ কেনার টেন্ডার বাতিল করতে কেন্দ্রীয় সরকার বাধ্য করে ছিলেন। টেন্ডার বাতিল করার কারণ হিসেবে বলা হয় যে ভারতীয় নির্মাতারা এই টেন্ডারের নিয়মাবলীর জন্য অংশগ্রহণ করতে পারেন নি। যদিও টেন্ডার বাতিল হওয়ার পাঁচ মাস পার হয়ে গেলেও কেন্দ্রীয় সরকার এখনও জানাতে পারলেন না কোন ভারতীয় নির্মাতা বিএসএনএল এর ৪জি পরিষেবার চালু করার জন্য উপযুক্ত। 

 অন্য দিকে ডিওটি নিযুক্ত কমিটি বারবার নির্দেশ দিচ্ছে যে বিএসএনএল এর ৪জি পরিষেবা "সিস্টেম ইন্টিগ্রেটর' এর মাধ্যমে চালু করা উচিত। সিস্টেম ইন্টিগ্রেটর এর কাজ হলো ৪জি পরিষেবা প্রদান করতে প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ ও সফ্টওয়্যার যোগার করে সেগুলো একত্রিত করা। সেইজন্য বিশেষজ্ঞদের মতে সিস্টেম ইন্টিগ্রেটর এর মাধ্যমে চালু পরিষেবা ব্যয় বহুল ও প্রযুক্তিগত ভাবে নিম্নমানের। সেই কারণে যে সকল বেসরকারি কোম্পানি ৪জি পরিষেবা চালু করেছে তারা একটি কোম্পানির সাথে নেটওয়ার্ক প্রতিস্থাপন ও তা রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য চুক্তি করে। 

আরও গুরুত্বপূর্ণ হলো, ভারতীয় নির্মাতাদের ৪জি পরিষেবা চালু করার বিষয়টি এখনও পরীক্ষিত নয়। যখন বেসরকারি কোম্পানিগুলি আন্তর্জাতিক নির্মাতাদের কাছ থেকে বিশ্বমানের যন্ত্রাংশ এর সাহায্যে ৪জি পরিষেবা প্রদান করছে, তখন এটা কোটি টাকার প্রশ্ন কেন কেন্দ্রীয় সরকার বিএসএনএল কে ৪জি পরিষেবা চালু করার জন্য ভারতীয় নির্মাতাদের অপরীক্ষিত যন্ত্রাংশ ব্যবহার করতে বাধ্য করছেন। এটি বিএসএনএল কে কেবল অসম প্রতিযোগিতার মুখোমুখি ফেলবে তাই নয় এই সংস্থাটির ডানা বেঁধে ফেলার জন্য একটি চক্রান্ত। 

বেসরকারি কোম্পানি এয়ারটেল ও ভোডাফোন-আইডিয়া, তাদের ৪জি পরিষেবা ও আন্তর্জাতিক প্রযুক্তি ব্যবহার করেও রিলায়েন্স জিও এর প্রতিযোগিতায় প্রতি মাসে লক্ষ গ্রাহক হারাচ্ছে। সেখানে বিএসএনএল ২জি ও ৩জি পরিষেবা প্রদান করেই জুলাই মাসে ৩.৮৮ লক্ষ নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে। এর থেকে এটা প্রমাণিত হয় যে মুকেশ আম্বানির টেলিকম ক্ষেত্রে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার এর বিরুদ্ধে বিএসএনএল প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী। ঠিক এই কারণে বিএসএনএল এর ৪জি পরিষেবা চালু করার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। সেই জন্য আমরা দাবি করছি অবিলম্বে বিএসএনএল এর ৪জি পরিষেবা চালু করার ক্ষেত্রে সমস্ত প্রতিবন্ধকতাকে সরাতে হবে। আমরা আরও দাবি জানাচ্ছি, বিএসএনএল কে বেসরকারি কোম্পানিগুলির মতো যন্ত্রাংশ কেনার ক্ষেত্রে সমান সুবিধা প্রদান করতে হবে। এছাড়াও আমাদের ১০ দফা দাবি সনদের বাকি দাবিগুলোর সমাধানের দাবি জানাচ্ছি। 

কেন্দ্রীয় সরকারের রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বেসরকারিকরণ করার নীতির একটি অংশ বিএসএনএল কে বেসরকারিকরণ করার চক্রান্ত এ সমন্ধে কোনো দ্বিধা নেই। কেন্দ্রীয় সরকার দ্রুততার সাথে রেলওয়ে, প্রতিরক্ষা, অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরি, বিপিসিএল, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক, এলআইসি, কয়লা খনি ইত্যাদি বেসরকারিকরণ করার চেষ্টা করছেন। আমরা বিএসএনএল এর আটটি ট্রেড ইউনিয়ন ও অ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় সরকারের রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বেসরকারিকরণ করার প্রচেষ্টার তীব্র বিরোধিতা করছি। আমরাও কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নসমূহের সাত দফা দাবি আদায়ের জন্য যুক্ত আছি, এই দাবিগুলোর মধ্যে আয়কর দেন না এমন পরিবারগুলিকে প্রতি মাসে ৭৫০০ টাকা প্রদান, মালিক অনুসারী ও কর্মচারী বিরোধী লেবার কোড প্রত্যাহার, কর্পোরেট অনুসারী কৃষি বিল বাতিল, কেন্দ্রীয় সরকারি ও রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থায় অবসরের বয়সের আগে কর্মীদের অবসর গ্রহণের অধ্যাদেশ বাতিল ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। 

আমরা বিএসএনএল এর আটটি ট্রেড ইউনিয়ন ও অ্যাসোসিয়েশন বিএসএনএল এর সকল স্তরের কর্মচারীদের কাছে আগামী ২৬ নভেম্বর,২০২০ এর সাধারণ ধর্মঘট সফল করার জন্য আবেদন জানাচ্ছি। আমরা সাধারণ জনগণ ও সমস্ত প্রকার সংবাদ মাধ্যমের কাছে আমাদের যুক্তিপূর্ণ সংগ্রামে সহযোগিতা করার আবেদন করছি। 

বিএসএনএল এর দাবি সনদ

১) অবিলম্বে বিএসএনএল এর ৪জি পরিষেবা চালু করতে হবে। বেসরকারি কোম্পানিগুলির সঙ্গে যন্ত্রাংশ কেনার ব্যাপারে কোনো পক্ষপাতিত্ব করা চলবে না। 

২) তৃতীয় বেতন চুক্তি সম্পন্ন করতে হবে। 

৩) কাজের আউটসোর্সিং এর নামে ঠিকানা কর্মচারীদের ছাঁটাই করা চলবে না। ছাঁটাই হওয়া কর্মচারীদের অবিলম্বে নিয়োগ করতে হবে। ঠিকা কর্মচারীদের বকেয়া বেতন প্রদান করতে হবে। 

৪) ০১/০১/২০১৭ পেনশন সংশোধন করতে হবে। 

৫) নন-এক্সিকিউটিভ কর্মচারীদের জন্য নতুন পদোন্নতির ব্যবস্থা চালু করতে হবে। 

৬) অবিলম্বে জেটিও, জেএও, জেই ও টিটি পদে উন্নীত করার জন্য এলআইসিই নিতে হবে। 

৭) কোভিড১৯ এর আক্রমণে মৃত কর্মচারীদের ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপুরণের বন্দোবস্ত করতে হবে। নিখরচায় হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। 

৮) নন-এক্সিকিউটিভ কর্মচারীদের জন্য গ্রুপ টার্ম ইনসিওরেন্স এর ব্যবস্থা করতে হবে। 

৯) বিএসএনএল এ নিযুক্ত কর্মচারীদের ৩০ শতাংশ অবসরকালীন সুবিধা প্রদান করতে হবে। 

১০) ক্যাজুয়াল কর্মচারীদের বেতন সংশোধন করতে হবে। 

কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নগুলির দাবি সনদ

১) আয়কর দেন না এমন পরিবারগুলিকে প্রতি মাসে ৭৫০০ টাকা প্রদান। 

২) প্রতিটি দুস্থ পরিবারকে মাথা পিছু প্রতি মাসে ১০ কেজি করে খাদ্য শষ্য দিতে হবে। 

৩) এমজিএনরেগা এর কাজের দিন বাড়িয়ে ২০০ দিন, এই প্রকল্পের মজুরি বৃদ্ধি এবং শহর এলাকায় এই প্রকল্পের কাজের পরিধি বাড়াতে হবে। 

8) সমস্ত কৃষক বিরোধী আইন ও শ্রমিক বিরোধী লেবার কোড বাতিল করতে হবে। 

৫) আর্থিক প্রতিষ্ঠান সহ সমস্ত রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার বেসরকারিকরণ, কেন্দ্রীয় সরকার অধিকৃত নির্মাণ ও পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলি যেমন রেলওয়ে, অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরি, পোর্ট ইত্যাদি সংস্থাকে বেসরকারিকরণ বন্ধ করতে হবে। 

৬) কেন্দ্রীয় সরকারি ও রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থায় অবসরের বয়স হওয়ার আগেই অবসরের দানবীয় নিয়ম বাতিল করতে হবে। 

৭) সকলের জন্য পেনশন এর ব্যবস্থা, এনপিএস বাতিল ও ইপিএস ৯৫ কে উন্নত করে পুরোনো পেনশন ব্যবস্থা চালু করতে হবে। 

 
[14th Nov 2020]

শোক প্রকাশ

 

টেলিফোন তথা কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী আন্দোলনের প্রবীণ নেতা কমরেড পরিতোষ বোস গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হসপিটালে ভর্তি ছিলেন। তিনি করোনা-১৯ ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছিলেন। রাত ১টা ৪৫ মিনিটে তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। তার অমলিন স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছে এবং তার পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছে বি এস এন এল এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন। কমরেড পরিতোষ বোস অমর রহে।

 
[7th Nov 2020]
 

 
[5th Nov 2020]

বিধাননগর টেলিফোন এক্সচেঞ্জে  সাধারণ ধর্মঘটের সমর্থনে কনভেনশন

 

আজ ৫ নভেম্বর বিধাননগর টেলিফোন এক্সচেঞ্জ এ ২৬ নভেম্বর সাধারণ ধর্মঘটের প্রচার শুরু হয়েছে জেলা কনভেনশনের মধ্য দিয়ে। কনভেনশন পরিচালনা করেন কমরেড জয়ন্ত ঘোষ। কমরেড সুব্রত পাল কনভেনশনের উদ্যেশ্য ব্যখ্যা করে ধর্মঘটের প্রচার শুরুর কথা বলেন। স্ট্রাইক কমিটি গঠন করা হয়েছে বিভাগীয়, পেনশনার এবং অনিয়মিত সংগঠকদের নিয়ে। কনভেনশনের প্রধান বক্তা শিশির রায় বি এস এন এল এর দশ দফা এবং সাধারণ মানুষের সাত দফা দাবি আলোচনা করে ধর্মঘটের সমর্থনে বক্তব্য রাখেন। বি এস এন এল শিল্প রক্ষ্যা করে কর্মচারীদের জন্য দাবী আদায় করার কথা বলেন।

 
[4th Nov 2020]

২৬ নভেম্বর সাধারণ ধর্মঘটের সমর্থনে কনভেনশন

 

আজ ৪ঠা নভেম্বর, ২০২০ বিশ্বনাথ দেচৌধুরী সভাঘরে ২৬ নভেম্বর সাধারণ ধর্মঘটের সমর্থনে সার্কেল কনভেনশন অনুষ্ঠিত হয় । এই কনভেনশন পরিচালনা করেন বি এস এন এল ই ইউ এর সার্কেল সভাপতি কমরেড প্রবীর কুমার দত্ত। কমরেড শিশির কুমার রায়, সার্কেল সম্পাদক ধর্মঘটের দাবিসমূহ ব্যাখ্যা করেন এবং তিনি প্রচার কর্মসূচি কী কী ভাবে কোথায় কোথায় হবে এই মতামত জানতে চান উপস্থিত সকল সংগঠকদের কাছে। এর পর কমরেড সঞ্জীব ব্যানার্জি, সার্কেল সম্পাদক, এ আই বি ডি পি এ, ধর্মঘটের সমর্থনে বক্তব্য রাখেন। ঠিকা মজদুর ইউনিয়নের পক্ষে বক্তব্য রাখেন কমরেড তাপস ব্যানার্জি। এছাড়া কমরেড দেবব্রত বসু, কমরেড মনীষা বিশ্বাস এবং আরও অনেকে ধর্মঘট সফল করতে তাদের মূল্যবান বক্তব্য রাখেন। আলোচনার পর কনভেনশন থেকে গঠিত হোয়েছে স্ট্রাইক কমিটি নিয়মিত, অনিয়মিত ও পেনশনার সংগঠকদের নিয়ে। সংগঠনের প্রতিনিধিরা ধর্মঘটের দাবিগুলি নিয়ে আলোচনা করেন। সভার মুল বক্তা শিশির রায় দেশের ও দশের সাত দফা দাবির সাথে বি এস এন এল শিল্প ও কর্মচারীদের দশ দফা দাবিতে ধর্মঘট সফল করার আহ্বান জানান। সভাপতি কমরেড প্রবীর কুমার দত্ত সভার প্রত্যেক সদস্যকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভা শেষ করেন।

 
[4th Nov 2020]

डॉ के हेमलता, अध्यक्ष, CITU फेसबुक पर BSNL कर्मियों को  लाइव संबोधित करेंगी....

 

BSNLEU द्वारा 26 नवंबर, 2020 की आम हड़ताल के संबंध में कॉम तपन सेन, महासचिव, CITU का फेसबुक पर लाइव उद्बोधन कार्यक्रम आयोजित किया जा चुका है। वह उद्बोधन अंग्रेजी में था।BSNLEU के ऑल इंडिया सेन्टर ने अब हिंदी में फेसबुक लाइव कार्यक्रम आयोजित करने का निर्णय लिया है। तदनुसार, डॉ के हेमलता, अध्यक्ष, CITU फेसबुक पर 17-11-2020 को शाम 6.00 बजे BSNL कर्मियों को हिंदी में संबोधित करेंगी। चूंकि, यह लाइव उद्बोधन हिंदी में होगा, हिंदी भाषी सर्किल के सर्किल और डिस्ट्रिक्ट सेक्रेटरीज से अनुरोध है कि, वें सुनिश्चित करें कि यह कार्यक्रम अधिक से अधिक साथी देखें। 

 
[2nd Nov 2020]

BSNL को खत्म करने का षड्यंत्र गहरा रहा है..

 

BSNL के 4G टेंडर के निरस्तीकरण के पश्चात सरकार द्वारा BSNL के 4G की शुरुआत हेतु रोडमैप के लिए सुझाव देने हेतु जो समिति गठित की गई थी,उसके द्वारा, प्राप्त जानकारी अनुसार, अपनी अनुशंसा प्रस्तुत कर दी गई है। उक्त समिति द्वारा दिए गए सुझाव स्पष्ट रूप से  प्रदर्शित करते हैं कि सरकार 4G की शुरुआत में विलंब कर BSNL को एक बीमार कंपनी में परिवर्तित करना चाहती है। 

मीडिया की रिपोर्ट्स के अनुसार, DoT कमिटी ने, सिस्टम इंटेग्रेटर द्वारा BSNL का 4G नेटवर्क निर्मित करने व संचालित (manage) करने की अनुशंसा की है। “सिस्टम इंटेग्रेटर” एक भारतीय कंपनी होगी, जिसे विभिन्न वेंडर्स से हार्डवेयर और सॉफ्टवेयर प्राप्त कर उनको असेम्बल करने की जिम्मेदारी दी जाएगी। 
 
यह जानना बेहद जरूरी है कि सभी प्राइवेट टेलीकॉम ऑपरेटर्स द्वारा टर्नकी कॉन्ट्रैक्ट के जरिए सिर्फ एक वेंडर द्वारा अपना नेटवर्क निर्मित किया गया है। “टर्नकी कॉन्ट्रैक्ट” के अनुसार केवल एक ही वेंडर, मैनेज्ड सर्विस एग्रीमेंट के तहत नेटवर्क संचालित करेगा। किन्तु, “सिस्टम इंटेग्रेटर” मॉडल में एक से अधिक वेंडर शामिल रहेंगे, जिससे तकनीकी समस्याएं निर्मित होंगी।

“सिस्टम इंटेग्रेटर मॉडल” को लेकर  ET Telecom अखबार ने अपने 12 अक्टूबर, 2020 के अंक में निम्न समाचार प्रकाशित किया है:-

" BSNL के 4G नेटवर्क के निर्माण हेतु घरेलू वेंडर (home-grown vendors) को प्राथमिकता देते हुए , “सिस्टम इंटेग्रेटर मॉडल” को अपनाने के किसी भी प्रयास के परिणाम स्वरूप, इंडस्ट्री एक्सपर्ट्सऔर एनालिस्ट के अनुसार, कीमतें प्रभावित होंगी और मार्किट में प्रतिस्पर्धा करने में कंपनी (BSNL) की क्षमताएं आहत होंगी। उनका कहना है कि 4G नेटवर्क, जिसमें रेडियो और कोर प्रोडक्ट्स शामिल है, के निर्माण में सिस्टम इंटेग्रेटर (SI) मॉडल और स्थानीय प्लेयर्स की निपुणता अभी तक व्यापक तौर पर साबित नही हुई है। 

इन सभी से यह परिलक्षित हो रहा है कि BSNL को खत्म करने का षड्यंत्र गहराता जा रहा है। इसे रोकने के लिए, सभी यूनियन्स और एसोसिएशंस को एक साथ आना चाहिए।

 
You are Visitor Number Hit Counter
Hit Counter
[CHQ] [AP] [Kerala] [Karnataka] [Tamil Nadu] [Calcutta] [West Bengal] [Punjab] [Maharashtra] [Orissa] [MP] [Gujrat] [SNEA] [AIBSNLEA] [TEPU]
[Intranet / BSNL] [DOT] [DPE] [TRAI] [PIB] [CITU ] / AIBDPA